In the Name of Allah, The Most Gracious, Ever Merciful.

Love for All, Hatred for None.

Browse Ahmadiyya Bangla

Press Logo

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

শনিবার, ৭ মে, ২০১৬

ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে আহমদীয়া মুসলিম জামা’তের বিশ্ব প্রধানের জুমু’আর খুতবা প্রদান

হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.) বলেন যে, আহমদী মুসলমানদের ধর্মভীরুতা, দয়া ও নৈতিকতার সর্বোচ্চ মানদণ্ড স্থাপন করা উচিত

FridaySermonFromCopenhegen2016

৬ মে ২০১৬ তারিখে আহমদীয়া মুসলিম জামাতের বিশ্ব প্রধান ও পঞ্চম খলিফা হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.) ডেনমার্কের কোপেনহেগেনের নুসরাত জাহান মসজিদে তাঁর সাপ্তাহিক জুমু’আর খুতবা প্রদান করেন।

তাঁর খুতবায় সম্মানিত হুযূর (আই.) বলেন, কোপেনহেগেনে শেষ ভ্রমণের পর ১১ বছর অতিবাহিত হয়েছে। আর এই সময়ের মধ্যে আহমদীয়া মুসলিম জামাত ডেনমার্ক বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নতি করেছে।

সম্মানিত হুযূর (আই.) বলেন, এ ধরনের উন্নতির জন্য স্থানীয় আহমদীদের উচিত মহান আল্লাহতা’লার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করা।

FridaySermonFromCopenhegen2016

হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.) বলেন:

কেবল মৌখিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করাই যথেষ্ট নয় বরং, আমাদের আত্মজিজ্ঞাসা করা উচিত যে সর্বশক্তিমান আল্লাহতালার নির্দেশাবলী আমরা প্রকৃত অর্থে মান্য করে চলছি কিনা।

হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.) আরো বলেন:

সর্বশক্তিমান আল্লাহতা’লার করুণা ধারা লাভের উদ্দেশ্যে প্রত্যেকের উচিত নিজের ব্যবহার ও কাজকর্মের উন্নতির জন্য প্রার্থনা জারি রাখা। আমরা যদি ধর্মীয় ক্ষেত্রে প্রচেষ্টা চালানোর ক্ষেত্রে গাফিলতি দেখাই তবে, আমরা আমাদের সন্তানদের ধর্ম ও আল্লাহর রহমত থেকে দূরে সরিয়ে নেওয়ার জন্য দায়ী থাকবো।

হুযুর (আই.) বলেন, ডেনমার্কের আহমদীরা ভিন্ন ভিন্ন অবস্থান থেকে আহমদীয়া জামাতে শামিল হয়েছেন। কেউ জন্মগত আহমদী, কেউ স্থানীয়দের তবলিগের মাধ্যমে আহমদীয়াত গ্রহণ করেছেন আর কেউবা অন্যান্য জাতিগোষ্ঠী বা দেশ-যেমন কসোভো, থেকে অভিবাসন করে এখানে এসে বসতি স্থাপন করেছেন।

আহমদীয়া মুসলিম জামাতের সদস্যদের সম্বোধন করে হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.) বলেন:

আমরা যারা আহমদী মুসলমান তাদের নিজেদের প্রশ্ন করা উচিত যে, আমরা কি বয়’আতের শর্ত গুলো প্রকৃত অর্থে পূর্ণ করে চলছি নাকি কেবল বাপ-দাদার ধর্ম হিসেবে অনুসরণ করছি? ... উপরন্তু, যারা উন্নত জীবন যাপনের উদ্দেশ্যে এ দেশে আগমন করেছেন তাদের আত্ম জিজ্ঞাসা করা উচিত যে, সেই উন্নতি কি তাদেরকে ধর্ম থেকে দূরে সরিয়ে নিয়েছে?

FridaySermonFromCopenhegen2016

হযরত মির্যা মসরূর আহমদ (আই.) বলেন যে, ইসলামের শিক্ষা হলো দয়া, ভালোবাসা ও সহমর্মিতা প্রদর্শন। অথচ, এসব গুণাবলী প্রদর্শনের পরিবর্তে অনেকেই অন্যের অধিকার খর্ব করছে এবং নিষ্ঠুরতা ও অবিচার বিস্তৃতির কারণ হয়েছে। হুযূর (আই.) বলেন যে, এ ধরনের আচরণ যদি মুসলমানদের মধ্যে প্রকাশ পায় তবে তা অত্যন্ত পরিতাপের বিষয়। কারণ, ইসলামের শিক্ষা হলো সবার জন্য শান্তি ও ভালোবাসা।

সম্মানিত হুযুর (আই.) আহমদীয়া মুসলিম জামাতের পবিত্র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রতিশ্রুত মসীহ হযরত মির্যা গোলাম আহমদ (আ.) এর উক্তির মাধ্যমে এ জামাতের শান্তিপূর্ণ লক্ষ্য তুলে ধরেন।

হযরত মির্যা গোলাম আহমদ (আ.) বলেন:

সর্বশক্তিমান আল্লাহতা’লা আধ্যাত্মিকভাবে পুনর্জাগ্রত নতুন এক জামাত সৃষ্টির ইচ্ছা পোষণ করেছেন এবং এজন্য আমরা ইসলামের প্রকৃত শান্তিপূর্ণ বাণী প্রচার করে চলেছি যেন মানুষ তাকওয়ার সাথে জীবন যাপন করতে পারে।

হুযুর (আই.) বলেন যে, আহমদী মুসলমানদের কর্তব্য ছিল নৈতিকতার সর্বোচ্চ মান প্রদর্শন করা ও তাদের সদাচরণ দ্বারা অন্যদের অনুপ্রাণিত করা। তিনি আহমদীদের সতর্ক করে বলেন যে, যেসব আহমদী অনৈতিকতা বা অন্যায় আচরণ প্রদর্শন করে তারা কেবল নিজেদেরই নয় বরং, এ জামা’তেরও বদনামের কারণ হবে।

FridaySermonFromCopenhegen2016

হযরত মির্যা মাসরূর আহমদ (আই.) এই দোয়া করে খুতবা শেষ করেন:

আহমদীয়া মুসলিম জামাতের সদস্যরা যেন তাদের কাজের মাধ্যমে বিশ্বের সবাইকে সত্যের পথ প্রদর্শনের প্রয়াস পায় এবং আমরা যেন সব সময় আল্লাহর কাছে তার সমস্ত নেয়ামতের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি।

ShareThis Copy and Paste